ঢাকা, , শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯

সীমান্তে ইয়াবার চালান নিয়ে অনুপ্রবেশকালে বিজিবির সাথে বন্দুকযুদ্ধে দুই রোহিঙ্গা নিহত

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-২২ ১৭:৪৬:২১ || আপডেট: ২০১৯-০৮-২২ ১৭:৪৬:২৭

সিএসবি ২৪ ডটকম ॥

কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তে ইয়াবার চালান নিয়ে অনুপ্রবেশকালে বিজিবির সাথে বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ হয়ে দুই রোহিঙ্গা মাদক কারবারী নিহত হয়েছে। এসময় বন্দুকযুদ্ধে বিজিবির দুই সদস্য আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল হতে দেড় লাখ পিস ইয়াবা, দেশীয় বন্দুক, কিরিচ ও কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন, উখিয়া কুতুপালং ৭নং ক্যাম্পের ব্লক-ই-৩ এর ২৪নং রোমের বাসিন্দা মৃত সৈয়দ হোসেনের ছেলে মোঃ সাকের (২২) এবং নয়াপাড়া মোচনী ক্যাম্পের ব্লক সি-৪ এর ২নং রোমের বাসিন্দা মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে নুর আলম (৩০)। সুরতহাল রিপোর্ট তৈরীর পর মরদেহগুলো ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের উপাধিনায়ক মেজর শরীফুল ইসলাম জোমাদ্দার জানান, বৃহস্পতিবার রাতের প্রথম প্রহরে মিয়ানমার হতে মাদকের চালান অনুপ্রবেশের খবর পেয়ে কাটাখালীর নাফনদী পয়েন্টে অবস্থান নেয় টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের হোয়াইক্যং বিওপি ক্যাম্পের একটি টহলদল। কিছুক্ষণ পর হস্তচালিত কাঠের নৌকা নিয়ে কয়েকজন লোক এসে কাঁদায় নেমে সীমান্তে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালালে বিজিবি জওয়ানেরা চ্যালেঞ্জ করে। তখন মাদক বহনকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা করলে বিজিবির সিপাহী মতিউর রহমান (২৪) ও উজ্জ্বল হোসেন (২৬) আহত হয়। তখন বিজিবিও আত্মরক্ষার্থে গুলিবর্ষণ করে।

কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল তল্লাশী করে ৫০ হাজার ইয়াবা, ১টি দেশীয় তৈরী লম্বা বন্দুক, ২টি ধারালো কিরিচ ও ৩ রাউন্ড তাজা বুলেটসহ গুলিবিদ্ধ দুই এবং আহত বিজিবি জওয়ানদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। বিজিবি জওয়ানদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে মাদক বহনকারীদের উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মাদক পাচারকারীদ্বয় মারা যায়।

তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় পৃথক আইনে টেকনাফ থানায় মামলা করা হচ্ছে।