ঢাকা, , সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯

মালয়েশিয়ায় জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ১৫৫ অভিযোগ

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-১৫ ২১:১৮:১৪ || আপডেট: ২০১৯-০৮-১৫ ২১:৩৫:১৯

সিএসবি ডেস্ক: মালয়েশিয়ার বিভিন্ন স্থানে পুলিশের কাছে বিতর্কিত ইসলাম ধর্ম প্রচারক জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত ১১৫টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার পুলিশ সদর দফতরে এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির ফেডারেল সিআইডি পরিচালক হুজির মোহাম্মদ জানিয়েছেন, জাতিগত চীনা সংখ্যালঘুদের বিতাড়নের পরামর্শ দেওয়ার ঘটনায় এই ভারতীয় নাগরিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এসব অভিযোগ তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানান তিনি। বুধবার মালয়েশিয়ার মন্ত্রিসভার বৈঠকে জাকির নায়েকের স্থায়ী আবাসিকতা বাতিলের বিষয়ে আলোচনার একদিন পর তার বিরুদ্ধে দেশব্যাপী অভিযোগ দায়ের হওয়ার কথা জানালো পুলিশ। মালয়েশিয়ার সংবাদমাধ্যম দ্য স্টার জানিয়েছে, বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে শান্তি ভঙ্গের আশঙ্কায় জাকির নায়েকের সারাওয়াক প্রদেশে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে প্রাদেশিক প্রশাসন

সম্প্রতি ভারতের সংখ্যালঘু মুসলমানদের চেয়ে শতগুণ বেশি অধিকার মালয়েশিয়ার সংখ্যালঘু হিন্দুরা ভোগ করছে বলে মন্তব্য করেন জাকির নায়েক। তিনি বলেন, তারা ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে সমর্থন করে, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে নয়। হিন্দুদের নিয়ে জাকিরের করা মন্তব্যের জেরে তাকে মালয়েশিয়া ছেড়ে যাওয়ার কথা বলা হলে তিনি জাতিগত সংখ্যালঘুদের লক্ষ্যবস্তু বানান। গত ৮ আগস্ট কেলানতান প্রদেশে এক আলোচনায় তিনি বলেন, প্রথমে জাতিগত সংখ্যালঘুদের চলে যেতে হবে কারণ তারা মালয়েশিয়ার অতিথি। তিনি বলেন, আপনারা জানেন কেউ কেউ আমাকে অতিথি বলে। সুতরাং আমি বলি আমার আগে চীনারা এখানকার অতিথি। নতুন অতিথিকে আপনি যদি চলে যেতে বলেন, তাহলে পুরনো অতিথিদেরও ফিরে যেতে বলুন। জাকির বলেন, ‘চীনারা এখানে জন্ম নেয়নি, তাদের বেশিরভাগই। তারা নতুন প্রজন্ম  হতে পারে অবশ্যই’।

জাকিরের এই মন্তব্যের জেরে ক্ষোভে ফুঁসছে মালয়েশিয়া। দেশটিতে ধর্ম ও জাতিগত ইস্যু স্পর্শকাতর বলে বিবেচনা করা হয়। দেশটির ৬০ শতাংশ মানুষ মুসলমান আর বাকিরা চীন ও ভারতের নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী। এদের বেশিরভাগই হিন্দু।  বুধবার মালয়েশিয়ার মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদকে জাকির নায়েকের উত্তেজক বক্তব্যের জন্য তাকে প্রত্যার্পণ প্রয়োজন বলে জানান দুই মন্ত্রী। অন্য রাজনীতিবিদদের পাশাপাশি অন্তত চার মন্ত্রী তাকে প্রত্যার্পণের আহ্বান জানান।

এর একদিন পরে বৃহস্পতিবার পুলিশ সদর দফতরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মালয়েশিয়ার সিআইডি প্রধান হুজির মোহাম্মদ বলেন, শান্তি লঙ্ঘনের উদ্দেশে ইচ্ছাকৃত অপমান করায় পেনাল কোডের ৫০৪ ধারায় জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে। এছাড়া দেশটির সারাওয়াক প্রাদেশিক সরকারের পক্ষ থেকে সেখানে জাকির নায়েকের প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার কথা জানানো হয়েছে। প্রদেশের উপ মুখ্যমন্ত্রী জেমস মাসিং মাসুত জানিয়েছেন, শান্তি ভঙ্গের আশঙ্কায় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। 

প্রসঙ্গত, গত তিন বছর ধরে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছেন জাকির নায়েক। দেশটির আগের সরকার তাকে স্থায়ীভাবে দেশটিতে বসবাসের অনুমোদন দেয়। ভারতের আদালতে অর্থপাচার ও ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর মধ্য দিয়ে জিহাদি কার্যক্রম উদ্বুদ্ধ করার অভিযোগ রয়েছে জাকিরের বিরুদ্ধে। দিল্লির পক্ষ থেকে তাকে ফেরত পাঠানোর আনুষ্ঠানিক আবেদন করা হলে ২০১৮ সালে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ এ ব্যাপারে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন। তবে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে মাহাথির বলেছেন, ভারতে মৃত্যুর আশঙ্কা থাকায় তাকে সেখানে ফেরত পাঠানো হবে না। কিন্তু অন্য কোনও দেশ তাকে নিতে চাইলে স্বাগত জানানো হবে।