ঢাকা, , সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯

শুদ্ধিতার বড়ো অভাব

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-১২ ২৩:৪০:১৬ || আপডেট: ২০১৯-০৮-১৩ ০০:৫৫:৩৫

পলাশ বড়ুয়া: ঘুমধুম থেকে ফিরছিলাম। তখন বাজে রাত ৯ টা ২০মিনিট। ঈদের দিন তাই রাস্তায় গাড়ি চলাচলও হাতেগুনা দুয়েকটা। কুতুপালং হাজাম্যার রাস্তার মাথা নামক স্থানে সিভিল পোষাকে এক ভদ্রলোক গাড়ী থেকে নেমে ডিউটিরত বলে ৪০টাকা ভাড়া না দিয়ে চলে গেলেন। সিএনজি চালক নিজেও ততমত।

তখন গাড়ীতে থাকা অপরাপর যাত্রীদের প্রশ্ন? উনি আদৌ কি পুলিশ? নাকি পুলিশ নামধারী ?

জবাবে সিএনজি চালক হাছন আলী কয় ২৪ বছরের ড্রাইভারী জীবনে পুলিশের নামে এই পর্যন্ত ২ জন ছোটলোকের বাচ্চার সাথে সাক্ষাত হয়েছে আমার।

ক্ষোভের স্বরে তিনি আরো বলেন প্রথমতঃ সে সিভিল পোশাকধারী। দ্বিতীয়তঃ পুলিশ যদি সে হয়েও থাকে সরকার কি তারে ভাড়া না দিতে বলেছে? আরো নানা কথা।

বেশভূষায় ভদ্র লোকটিকে দাঁড় করিয়ে ভাড়া আদায় না করার কারণ সম্পর্কে চালক বলেন, সামান্য এই টাকার জন্য হয়তঃ হরেক রকমের আইনী জটিলতায় পড়তে হবে। তাই কিছু বলিনি।

মানব জীবন বড়ই দূর্লভ। ক্ষণিকের এই যাত্রায় শুদ্ধিতার বড়ো অভাব। আমাদের সচেতনতারও অভাব আছে । এসব থেকে উত্তরণ দরকার।

লেখক : সম্পাদক, সিএসবি ২৪ ডটকম।