ঢাকা, , মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বাংলাদেশে ডেঙ্গু, আতঙ্কে মমতা

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-০২ ১৭:০৭:০৭ || আপডেট: ২০১৯-০৮-০২ ১৭:০৭:১১

অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশে মহামারি আকার ধারণ করছে ডেঙ্গু। সেই সাথে সারাদেশে বেড়েই চলেছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। এখন পর্যন্ত সারাদেশে অর্ধশত মানুষের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

অন্যদিকে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ডেঙ্গু ছড়ানোর পেছনে বাংলাদেশের মশাদের সক্রিয় ভূমিকা থাকতে পারে বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) ‘সবুজ বাঁচাও’ অভিযানের ডাক দিয়ে বিড়লা তারামণ্ডল থেকে নজরুল মঞ্চ পর্যন্ত পদযাত্রা করেন মমতা। সেখান তিনি এপার থেকে ওপার বাংলায় যেন ডেঙ্গু ছড়াতে না পারে সেজন্য কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করে দেন।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন, ‘বাংলাদেশে খুব ডেঙ্গু হচ্ছে। আমাদের বাড়তি সাবধানতা নিতে হবে। সীমান্ত এলাকায় মশা ও-পার থেকে এ-পারে আসে, এ-পার থেকে ও-পারে যায়। দু-পারেই অনেক লোকও যাতায়াত করেন’। সমাজের সর্বস্তরের অংশগ্রহণে সবুজ বাঁচাও অভিযানের বক্তৃতায় অন্য নানা প্রসঙ্গের সঙ্গে ডেঙ্গু নিয়ে উদ্বেগ জানান মমতা।’

ভারতের গণমাধ্যমে বলা হয়, বাংলাদেশে চলতি বছরের জুলাই পর্যন্ত ১৭ হাজার ১৮৩ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ১,৪৭৭। ঢাকায় মৃত ১৪। কলকাতা পৌরসভার কাছে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় ডেঙ্গু মোকাবিলা পদ্ধতি সম্পর্কে বুঝতে বাংলাদেশ প্রস্তাব পাঠিয়েছে। বিষয়টি বিবেচনাধীন বলে জানায় তারা।

মমতা বলেন, ‘বাংলাদেশে কিছু হলে এখানে তার প্রভাব পড়ে। তাই সীমান্ত এলাকাগুলোতে ডেঙ্গু প্রতিরোধে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে হবে।’ এছাড়াও সাধারণভাবে ডেঙ্গুর মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সতর্কতা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে সচেতন করে দেন মমতা।’

পশ্চিমবঙ্গে ইতোমধ্যেই ৭০০ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। তার মধ্যে সব থেকে বেশি রোগী পাওয়া গিয়েছে উত্তর ২৪ পরগনার সীমান্তবর্তী এলাকা হাওরায়। জেলাটির সরকারি হিসাব অনুযায়ী, প্রায় ৫০-৬০ শতাংশ ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী পাওয়া গিয়েছে এখানে। তাই তারা এজন্য বাংলাদেশকে দুষছে।