ঢাকা, , শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০১৯

বোলিং পারফরম্যান্সে খুশি মোস্তাফিজ

প্রকাশ: ২০১৯-০৪-০৯ ১২:৫৬:৫৮ || আপডেট: ২০১৯-০৪-০৯ ১২:৫৭:০২

খেলাধুলা: চার বছর পর প্রিমিয়ার লিগে খেললেন মোস্তাফিজুর রহমান। ফেরার ম্যাচে আগুনে বোলিং করলেন শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের বাঁ-হাতি পেসার। নিজের প্রথম ওভারে ৬ রান খরচায় তুলে নেন ২ উইকেট। দ্বিতীয় ওভার মেইডেন। ওই ওভারে কোনো রান নিতে পারেননি গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের শামসুর রহমান। কাটার মাস্টারের বোলিং বিশ্লেষণ ৬.৫-১-২৩-৩। ইকোনমি ৩.৩৬।

অবশ্য বল হাতে মোস্তাফিজ উজ্জ্বল হলেও তার দল জয় পায়নি। বৃষ্টি আইনে ম্যাচটি ২১ রানে জিতে নিয়েছে গাজী গ্রুপ। নিজের বোলিং পারফরম্যান্সে খুশি মোস্তাফিজ। তবে দলের পরাজয়ে তার মন খারাপ।

বললেন, ‘আমি আমার কাজটা ঠিকমতো করার চেষ্টা করেছি। উইকেট ভালো ছিল। সেভাবে কাটার মারিনি। উইকেট পেয়েছি ভালো লাগছে। তবে দল জিতলে আরও ভালো লাগত। পরের ম্যাচেও নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব।’ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা শাইনপুকুর নির্ধারিত ৪৮ ওভারে ৯ উইকেটে ১৭৭ রান করে। দুবার বৃষ্টি-বাধার কারণে ওভার কমিয়ে আনা হয়। সাদমান ইসলাম ৪০, সোহরওয়ার্দী শুভ ৩০ ও দেলওয়ার হোসেন অপরাজিত ৪০ রানের ইনিংস খেলেন।

গাজী গ্রুপের হয়ে সনজিত সাহা সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট পান। নাসুম আহমেদের শিকার ২ উইকেট। রানতাড়ায় শুরুতেই হোঁচট খায় গাজী গ্রুপ। মোস্তাফিজের বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতে পারেননি ওয়ালিউল করিম, ইমরুল কায়েস এবং মেহেদী হাসান। দলীয় ৬ রানে ২ উইকেট হারায় গাজী গ্রুপ। তৃতীয় উইকেটে ৪৬ রানের জুটি গড়েন মেহেদী-শামসুর।

মেহেদীকে ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন মোস্তাফিজ। তবে দলকে কক্ষপথে রাখেন শামসুর রহমান (৫৩*)। গাজী গ্রুপের জয়ের নায়ক ম্যাচসেরা সনজিত সাহা ও শামসুর রহমান। ২১ বছর বয়সী সনজিতের ঘূর্ণি জাদুতেই শাইনপুকুরের দলীয় স্কোর হৃষ্টপুষ্ট হয়নি। অন্যদিকে ব্যাট হাতে দলের জয়ে বড় অবদান রেখেছেন শামসুর।

গাজীর ইনিংসের ২১.৫ ওভারের সময় বৃষ্টি নামলে খেলা আর মাঠে গড়ায়নি। সে সময় ইমরুল কায়েসের দলের সংগ্রহ ছিল ১০৬/৪। বৃষ্টি আইনে জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৮৫ রান। পঞ্চম জয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ছয় নম্বরে উঠে এসেছে গাজী গ্রুপ। পঞ্চম হারে আট নম্বরে নেমে গেছে শাইনপুকুর।