ঢাকা, , বৃহস্পতিবার, ৯ মে ২০১৯

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৭তম প্রয়ান দিবসে ‘রবীন্দ্রস্মরণ’ অনুষ্ঠান সম্পন্ন

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-১০ ২০:০৮:৩৫ || আপডেট: ২০১৮-০৮-১০ ২০:০৮:৩৫

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:

‘যখন পড়বে না মোর পায়ের চিহ্ন এই বাটে, আমি বাইবো না মোর খেয়া তরী এই ঘাটে গো’। গেলো বাইশে শ্রাবণ ছিলো কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৭তম মহা প্রাণ দিবস। কে বলে রবীন্দ্রনাথ চলে গেছেন! রয়ে গেছেন আমাদের আনন্দ-বেদনা, হাসি-কান্না, প্রেম-বিরহ-সবকিছুর মাঝে।

বাঙালির এ প্রাণের কবি নশ্বর পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেও তার অসামান্য লেখনি আর কাজের মধ্যে দিয়ে বেঁচে আছেন প্রেরণাদাতা হয়ে সবার মাঝে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বহুমুখী সৃজনশীলতা বাংলা সাহিত্য ও শিল্পের প্রায় সবকটি শাখাকে স্পর্শ করেছে, বাড়িয়েছে সমৃদ্ধি। সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠী কক্সবাজার জেলা শাখার উদ্যোগে গতকাল ২৬ শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১০ আগস্ট, ২০১৮ সকাল ১১টায় কক্সবাজার ইনস্টিটিউট ও পাবলিক লাইব্রেরীর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত রবী ঠাকুরের ৭৭তম প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ‘রবীন্দ্রস্মরণ’ অনুষ্ঠানে বক্তারা উপরোক্ত কথা বলেন।

সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠী কক্সবাজার জেলা শাখার প্রধান সমন্বয়ক মো. খোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে ও যুগ্ন সমন্বয়ক মনির মোবারকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত রবীন্দ্রস্মরণ অনুষ্ঠানে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন প্রবীন সঙ্গীত শিল্পী আলম শাহ, আব্দুল মতিন আজাদ। স্মরণ অনুষ্ঠানে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান পরিবেশন করেন আফিয়া শামা বৃন্তা, মৌটুসী পাল তমা, অর্পিতা দাশ, সায়ন্তি ভট্টাচার্য এবং তৃষা বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠীর নৃত্য প্রশিক্ষন সুপর্ণা দেব, সাংস্কৃতিক সংগঠক ফয়সাল মাহমুদ সাকিব, শ্রুতি আবৃত্তি অঙ্গনের সাধারণ সম্পাদক চাষী ছোটন সহঅভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।