ঢাকা, , বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০

সিনহা হত্যাকান্ডে জড়িত লিয়াকত ক্লোজড, ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

প্রকাশ: ২০২০-০৮-০২ ১৯:৩৫:৫৯ || আপডেট: ২০২০-০৮-০২ ২০:১২:০৪

সিএসবি২৪ রিপোর্ট:
ছবির মানুষটি লিয়াকত আলী। যাকে কক্সবাজারের টেকনাফে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো: রাশেদ হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার অপরাধে ইতোমধ্যে ক্লোজড করা হয়েছে।

রোববার ২ আগস্ট সকালে লিয়াকতসহ ২০ সদস্যকে ক্লোজড করা হয় বলে চট্টগ্রাম রেঞ্জ পুলিশের বিশ্বস্ত একটি সুত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

লিয়াকত কার নির্দেশে সেনা কর্মকর্তা (অব:) সিনহাকে গুলি করে হত্যা করেছে? তাঁর গাড়ীতে ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধারের বিষয়টি উদ্বেগ প্রকাশ করতে দেখা গেছে সাধারণ মানুষের মাঝে। এদিকে ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত ও সুষ্টু বিচারের দাবীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে।

কক্সবাজারের সাংবাদিক আহমদ গিয়াসের “রাষ্ট্রের প্রশাসন ও গোয়েন্দা সংস্থা এ দায় এড়াতে পারে না” শীর্ষক স্ট্যাটাসে- আবু হায়দার ওসমানী নামে একজন বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবী করেন।

আমির হোসাইন হেলালী নামে একজন বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী পুলিশ। এই দেশের সর্বোচ্চ দেশ রক্ষাকারী সুসংগঠিত দক্ষ সেনা কর্মকর্তা কে গুলি করে হত্যা করেছে। এতে কি বুঝা যায়? এতে সর্বসাধারণ জনগণ বুঝতে পেরেছে টেকনাফের আইন শৃঙ্খলার চরম অবনতি হয়েছে। পুলিশ প্রশাসন বেপরোয়া হয়ে পড়েছে। পুলিশের হাতে নিরাহ মানুষ ও লোকজন জিম্মি হয়ে পড়েছে।

আজিম শামশুল ইসলাম হেলালী নামে একজন বলেছেন, ‘সঠিক বিচার চাই’।

যদিও ঘটনার সঠিক তদন্তের জন্য ১ আগস্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট (এডিএম) মোঃ শাজাহান আলীকে আহবায়ক ও কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন ও রামু সেনানিবাসের প্রধানের একজন প্রতিনিধিকে সদস্য করে তদন্ত কমিটি গঠন করে দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, গত ৩১ আগস্ট রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ রোডে কক্সবাজারমূখী সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো: রাশেদ এর প্রাইভেট কারটি টেকনাফের বাহারছরা শাপলাপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রে পৌঁছালে গাড়িটি তল্লাশি করা নিয়ে তর্ক হয়।

তখন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো: রাশেদ উপর দিকে হাত তুলে তাঁর কার থেকে বের হওয়ার সাথে সাথে তাঁকে তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর লিয়াকত আলী গুলি করে হত্যা করে বলে সেনা সদর থেকে গণমাধ্যমে প্রেরিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়েছে।