ঢাকা, , বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০

নওগাঁর এক কলেজছাত্রীর চুল কেটে অশ্লীল ছবি তোলায় যুবক গ্রেপ্তার (ভিডিও)

প্রকাশ: ২০২০-০৯-২২ ১২:৫৪:০৯ || আপডেট: ২০২০-০৯-২২ ১৩:৩২:২৭

মোঃ হাবিবুর রহমান, নওগাঁ:

নওগাঁর নিয়ামতপুর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় এন্ড কলেজের এক ছাত্রীর অশ্লীল ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে মাথার চুল কেটে দিয়েছে বখাটেরা।

এ ব্যাপারে কলেজ ছাত্রীর বাবা আমিরুল ইসলাম বাদী হয়ে গতকাল সোমবার থানায় অভিযোগ করে এবং পরে এটি মামলা হিসেবে রুজু করা হয়। মামলায় ৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ অভিযুক্ত রায়হানকে (২৫) গ্রেপ্তার করে। আর ৪ জন পালাতক রয়েছে।

রায়হান উপজেলার শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের ঝাঁজিরা গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে।

নিয়ামতপুর থানার অভিযোগ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার বেলা ৫ টায় বালাহৈর গ্রামের ভাড়াটিয়া বখাটে রায়হান তার ভাড়া বাড়ীতে কলেজছাত্রীকে ডেকে নিয়ে গিয়ে রায়হান ও তার বন্ধুরা মাথার চুল কেটে, মারধর করে অশ্লীল ছবি তোলে।

এ বিষয়ে নির্যাতনের শিকার মেয়েটি জানায়, রায়হান এক মাস যাবত বিভিন্নভাবে উত্যক্ত করতো। বিভিন্ন কু-প্রস্তাব দিত। আমি রাজী না হওয়ায় রোববার কম্পিউটার প্রশিক্ষণ শেষে এক স্যারের প্রাইভেটের টাকা দিতে গেলে বালাহৈর জামে মসজিদের কাছে রায়হান ও তার তিন বন্ধু আমাকে জোরপূর্বক তার ভাড়া বাড়ীতে নিয়ে যায়। সেখানে আমাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে, মাথার চুল কেটে ফেলে এবং আমার পর্ণ ছবি তুলে হুমকে দেয় যদি এসব কাউকে বলি তাহলে আমাকে মেরে ফেলবে।

ভুক্তভোগী ছাত্রীটি আরো জানায়, তারা দুঘন্টা ঘরে আটকে রেখে আমার পর্ণছবি তুলে সন্ধ্যা ৭টার দিকে থানায় নিয়ে গিয়ে এক এ এস আই এর কাছে, ভয়ভীতি দেখিয়ে মিথ্যা জবানবন্দি দিতে বাধ্য করে। পরে আমার নানা থানায় এসে আমাকে নানা বাড়ীতে নিয়ে যায়। রাত ১২টায় শারীরিকভাবে বেশী অসুস্থবোধ করলে আমাকে হাসপাতালে নিয়ে এসে ভর্তি করান।

মিয়েটির বাবা রেখশা চালক আমিরুল ও মা পারভিন ঐ যুবক দের দৃষ্টান্তমূলুক শাস্তি চাই।

নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ হুমায়ন কবির জানান, মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। মামলা রুজু করা হয়েছে। অভিযুক্ত রায়হানকে গ্রেফতার করেছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=3345393068883179&id=508482149240966