ঢাকা, , মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০

কক্সবাজারে পুলিশ হেফাজতে ইয়াবা কারবারীর মৃত্যু; ওসি সাসপেন্ড

প্রকাশ: ২০২০-০৮-১১ ২১:৩৫:২৫ || আপডেট: ২০২০-০৮-১১ ২১:৪২:৪৪

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ কক্সবাজার সদরের থানা হেফাজতে এক ইয়াবা কারবারীর মৃত্যু হয়েছে। পুলিশের দাবি, ইয়াবা বিক্রির সময় গণধোলাইয়ে শিকার আহতাবস্থায় তাকে হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (১১ আগষ্ট) সকালে ঘটনাটি ঘটছে মারা গেছে।

এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর থানার ওসি শাহজাহান কবিরকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসাইন।

মারা যাওয়া নবী হোসেন (৩৮) বাংলাবাজার পশ্চিম মুক্তারকুল এলাকার মৃত আব্দু শক্কুরের ছেলে।এর আগে সোমবার দুপুরে খরুলিয়া বাজার এলাকায় ভ্রাম্যমাণ অবস্থায় খুচরা ইয়াবা বিক্রি করার সময় স্থানীয় লোকজন সংঘবদ্ধ হয়ে তাকে আটক করার চেষ্টা করলে সে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। তার ধারালো অস্ত্রের আঘাতে উপস্থিত টমটম চালক সাহাব উদ্দিনসহ কয়েকজন আহত হন। পরে তাকে ধাওয়া করে গণধোলাই দেয় উত্তেজিত জনতা।

এসময় তার শরীর তল্লাশি চালিয়ে ধারালো অস্ত্র (ছুরি) নগদ ১ লাখ আটাশ হাজার টাকা ও ১৩ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা।

ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান টিপু সুলতান বলেন, খবর পেয়ে স্থানীয়রা সদর থানা পুলিশকে খবর দেয়। সদর থানার এস আই অঞ্জনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ওই ইয়াবা ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে নিয়ে যান। তখন সে সুস্থ ছিল বলে জেনেছি। সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) খায়রুজ্জামান বলেন, এক ইয়াবা ব্যবসায়ীকে গণধোলাই দিয়ে আটক করে রাখার খবর পেলে পুলিশ ওই ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আহতবস্থায় উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থানায় নিয়ে আসে।

সকালে সে অসুস্থবোধ করলে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।তিনি আরোও বলেন, তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আরোও দুটি মামলা রয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. শাহীন আবদুর রহমান বলেন, হাসপাতাল হতে একটু বাইরে আছি, পুলিশের আনা ব্যক্তি চিকিৎসাধীন অবস্থায় না হাসপাতালে আনার আগে মারা গেলেন তা জেনে বলতে হবে। তবে, পরে তাকে ফোন করা হলেও আর রিসিভ করেননি।

এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর থানার ওসি সৈয়দ মো. শাহজাহান কবিরকে সাসপেন্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ইকবাল হোসাইন। তাকে চট্টগ্রাম রেঞ্জে সংযুক্ত করা হয়েছে। তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে পুলিশ সদর দপ্তর।